রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৪:০৮ অপরাহ্ন

‘টোকাই’ প্রকাশের ৪০ বছর হলো

একুশে নিউজ
  • প্রকাশিত সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০১৮, ৩:০৬
  • ২৭৪ এই সময়
  • শেয়ার করুন

মাহফুজ রহমান: বাংলাদেশের অগ্রগণ্য শিল্পী রফিকুন নবী। রনবী নাম নিয়ে বিখ্যাত হয়েছেন কার্টুনিস্ট হিসেবেও। ‘টোকাই’ তাঁর অমর সৃষ্টি, যার শুরু হয়েছিল ১৯৭৮ সালে। টোকাইয়ের ৪০ বছরে রফিকুন নবীর সাক্ষাৎকার। সাক্ষাৎকার নিয়েছে  ‘টোকাই’ প্রকাশের ৪০ বছর হলো। শুরুতে টোকাইয়ের বয়স ছিল ৮-৯ বছর। এখনো কি টোকাইয়ের বয়স সে রকমই আছে?

রফিকুন নবী: কার্টুনিস্ট যদি ভাবেন যে তাঁর বয়স বাড়ার সঙ্গে চরিত্রের বয়সও বাড়াবেন, সেটা হতে পারে। তবে স্ট্রিপ কার্টুনের বেলায় মজা হলো, একই চরিত্র বছরের পর বছর একই বয়সে থাকতে পারে। ফলে টোকাইয়ের বয়স আমি বাড়াতে চাই না।

মাহফুজ: টোকাইয়ের শুরু কীভাবে হয়েছিল?

রফিকুন নবী: সেটা ১৯৭৬ সালের শেষ দিকের কথা। আমি তখন সদ্যই গ্রিস থেকে পড়াশোনা শেষ করে দেশে এসেছি। আসার পরপরই ঠিক করেছিলাম যে আর কার্টুন আঁকব না। ষাটের দশকে আমি কিছু ম্যাগাজিনে কার্টুন আঁকতাম। তবে আবার কার্টুন শুরু করার কোনো পরিকল্পনা ছিল না। আমি তখন শুধু চিত্রকলা—যেটা আমার আসল জায়গা—সেটা নিয়েই কাজ করার চেষ্টা করছিলাম। ১৯৭৭ সালের একদম শেষ দিকে, সাপ্তাহিক বিচিত্রা পত্রিকাটি তখন বেশ উঠতির দিকে। পত্রিকাটির সম্পাদক ছিল আমার ছোটবেলার বন্ধু শাহাদত চৌধুরী। তো, সে বিচিত্রার্ষপূর্তি উপলক্ষে আমাকে একটা কার্টুন এঁকে দেওয়ার জন্য জোরাজুরি করতে লাগল। ওর অনুরোধের চাপে আমি টোকাইয়ের প্রথম স্ট্রিপটি আঁকলাম। চরিত্রটির বয়স ৮-৯ বছর। নির্মল চেহারার একটি ছেলে, পেটফোলা—দেখলে মনে হয় অপুষ্টিতে ভুগছে। আস্তাকুঁড়ের কাছাকাছি বা ফুটপাতে থাকে। ওই প্রথম কার্টুনটি করার পর এটা এত জনপ্রিয় হয় যে নিয়মিতভাবে এই কার্টুন করার জন্য চাপ এল।

রফিকুন নবী: কার্টুনিস্ট যদি ভাবেন যে তাঁর বয়স বাড়ার সঙ্গে চরিত্রের বয়সও বাড়াবেন, সেটা হতে পারে। তবে স্ট্রিপ কার্টুনের বেলায় মজা হলো, একই চরিত্র বছরের পর বছর একই বয়সে থাকতে পারে। ফলে টোকাইয়ের বয়স আমি বাড়াতে চাই না।

মাহফুজ: মার্কিন কার্টুনিস্ট চার্লস এম শ্যুলজের চার্লি ব্রাউন থেকে আপনি অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন। সেই চরিত্রটির বয়সও বাড়েনি।

রফিকুন নবী: হ্যাঁ, চার্লি ব্রাউন কিংবা ডেনিস দ্য মিনেসের মতো চরিত্রগুলো কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে জনপ্রিয়। একটা কার্টুন চরিত্র নির্দিষ্ট কিছু বয়সের পাঠকের জন্যই বানানো হয়। সেক্ষেত্রে ওই বয়সের পাঠক সব সময় থাকে। তাই কার্টুন চরিত্রগুলোর বয়স না বাড়ালেও ওই নির্দিষ্ট পাঠকগোষ্ঠীর কাছে সব সময়ই জনপ্রিয় হয়। টোকাইকে কেবল শিশু-কিশোরই নয়, সাধারণ মানুষের কাছেও পৌঁছে দিতে চেষ্টা করেছি সব সময়। টোকাই রাজনীতি থেকে শুরু করে সামাজিক নানা রকম বিষয় বা সমস্যা নিয়ে বারবার কথা বলেছে।

মাহফুজ: এক বছর পূর্তিতে টোকাই বলেছিল, ‘সব সমস্যাই তো একই রকম আছে…’। এই ৪০ বছরেও সামাজিক সমস্যাগুলো একই রকম আছে…

রফিকুন নবী: হ্যাঁ, সমস্যার ব্যাপকতা বেড়েছে শুধু। একটা সময় দেশে প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে অনেক বেশি ভোগান্তি শুরু হয়, তখন টোকাই কথা বলেছে। সে সময় আমি অফিসের কাজে এক প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে দেখি, একটা হাইস্কুলে এসএসসি পরীক্ষা চলছে। স্কুলটির চারপাশের গাছে মাইক বসানো। মাইকগুলো স্কুলের দিকে মুখ করে রাখা। মাইকে বলা হচ্ছে-‘২ নং প্রশ্নের উত্তর লেখো। উত্তরটি হবে…’। আমি স্থানীয় লোকজনকে জিজ্ঞেস করলাম, কী হচ্ছে এখানে? তাঁরা জানালেন, পরীক্ষার জন্য নাকি প্রতিবারই এমন আয়োজন করা হয়। তবে এখন তো মাইকের প্রয়োজন পড়ে না। এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই পরীক্ষার আগ দিয়ে প্রশ্নপত্র ছড়িয়ে পড়ছে।

মাহফুজ:টোকাইয়ের মতো দুটি সত্যিকারের চরিত্রের সঙ্গে আপনার দেখা হয়েছিল। সেটা ১৯৬৮-৬৯ এবং ১৯৭৬-৭৭ সালের কথা…

রফিকুন নবী: হ্যাঁ, পুরান ঢাকার নারিন্দায় আমাদের বাসার বারান্দা থেকে একটা বাচ্চা ছেলেকে দেখতাম। বয়স ৬-৭ হবে। পেটমোটা, মাথাটা ন্যাড়া। মাটিতে গড়াগড়ি দেয়। চেক লুঙ্গি পরে, লুঙ্গিটা ঠিকমতো বাঁধতেও পারে না। মনের খেয়ালে মাঝেমধ্যে গানটানও করে। আমি ওকে ডেকে কথা বলতাম। বেশ খাতির হয়ে গিয়েছিল। টোকাই আঁকার সময় ওর কথা মনে পড়ে গেল। চরিত্রটা আঁকার আগে অনেকগুলো খসড়া করেছিলাম। শেষমেশ খুব সাধারণ, লুঙ্গি পরা, ন্যাড়া মাথার একটা ছেলেকেই আঁকলাম।

এই বিভাগের আরো খবর

ব্রেকিং:

আফগানিস্তানে হামলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা পাকিস্তানের

১৭ জেলায় হতে পারে ৬০ কিমি বেগে ঝড়, সতর্ক সংকেত

সরকারি হাসপাতালগুলোতে আছে রাসেল’স ভাইপারের এন্টিভেনম

বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে, কোথাও কোথাও ভারি বর্ষণের শঙ্কা

শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে অচল ৫৫ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়

স্ত্রীকে ফেসবুক থেকে দূরে রাখা নিষ্ঠুরতার শামিল

রূপগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাড়ি ঘিরে রেখেছে এটিইউ

ধনী কর্মকর্তাদের সম্পদের উৎসের খোঁজ শুরু করছে দুদক

টি-২০ বিশ্বকাপে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সেরার পুরস্কার পেলেন যারা

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার্থীদের মানতে হবে যেসব বিশেষ নির্দেশনা